চুলায় পিজ্জা তৈরি করার সহজ উপায় অথবা পিৎজা তৈরি

চুলায় পিজ্জা তৈরি

চুলায় পিজ্জা তৈরি ‍করার জন্য আজ আপনাদের খুবই সহজ উপায় বলে দেব। পিজ্জা সারা বিশ্বে একটি জনপ্রিয় খাবার হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। মোটামুটি সব শহরের মধ্যে এ পিজ্জা জনপ্রিয় একটি খাবার।

ফাস্টফুড প্রেমীদের কাছে পিজ্জা একটি খুব মজার খাবার। মুখে জল আনা এই খাবারের জন্য অনেকে বিভিন্ন ধরনের রেস্টুরেন্ট কিংবা পিজ্জা হাটে চলে যায়। কিন্তু বাহিরে রেস্টুরেন্টে পিজ্জা খুব ব্যয়বহুল একটি খাবার।

ঘরে বসেই খুব অল্প খরচে বাহিরের রেস্টুরেন্টের স্বাদে পিজ্জা তৈরি করা যায়। এমনকি চুলায় পিজ্জা তৈরি করা যায়। তাহলে চলুন জেনে নেই কিভাবে সহজে চুলায় পিজ্জা তৈরি করা যায় –

চুলায় পিজ্জা তৈরি উপকরণ

পিজা ডো তৈরির জন্য

  • ময়দা :১ কাপ
  • চিনি -১/২ চামচ
  • লবণ -স্বাদমতো
  • কুসুম গরম দুধ -১ ১/২ কাপ
  • তেল / বাটার -২ টেবিল চামচ ইস্ট পাউডার – ১ টেবিল চামচ

 পিজ্জার ওপরের স্টাফিং তৈরির জন্য

  •  টমেটো – ১ টেবিল চামচ ( ইচ্ছে অনুযায়ী কেটে নিতে পারেন)
  • সবুজ ক্যাপসিকাম -১ টেবিল চামচ ( লম্বা চিকন করে কেটে নেওয়া)
  • পেঁয়াজ -১ টেবিল চামচ ( গোল গোল করে কেটে খুলে নেওয়া)
  • মুরগির বুকের মাংস -২ টেবিল চামচ ( ছোট ছোট পাতলা করে কেটে নেওয়া)
  • টমেটো সস – ২ টেবিল চামচ
  • চিজ -৩  টেবিল চামচ( একটি গ্রেটার মেশিন দিয়ে গ্রেট করে নেওয়া)
  • গোলমরিচ গুঁড়ো -১ চামচ
  • কাঁচা মরিচ -৪-৫ টি ( মাঝখান থেকে ফালে করে নেওয়া)
  • আদা ও রসুন বাটা -১ চামচ

চুলায় পিজ্জা তৈরি পদ্ধতি

প্রথম ধাপ

প্রথম একটি বড় বাটিতে কুসুম গরম দুধ নিয়ে নিতে হবে। এই দুধের সাথে চিনি, স্বাদমতো লবণ ও ইস্ট পাউডার দিয়ে দিতে হবে। এখন একটি চামচের সাহায্যে এ সবগুলো উপকরণ ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে। মিশানো হয়ে গেলে এই পুরো বাটিটাকে একটি ঢাকনা দিয়ে ১০  মিনিটের জন্য ঢেকে রাখতে হবে।

দ্বিতীয় ধাপ

10 মিনিট পর দেখা যাবে যে এটার ওপর একটু বুদ বুদ  সৃষ্টি হচ্ছে এটাই হলো ইস্ট একটিভ করা। এখন এই বাটির মধ্যে ময়দা দিয়ে দিতে হবে। তারপরে এই ময়দা ও ওই উপকরণগুলো সাথে ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। কিছুক্ষণ মিশানো হয়ে গেলে তেল /বাটার দিয়ে দিতে হবে। এটা প্রথমে মিশাতে গেলে একটু আঠালো ভাব থাকবে।  কিন্তু কিছুক্ষণ পরে এই আঠালো ভাব থাকবে না। এখন এটাকে প্রায় 10 থেকে 15 মিনিটের জন্য ভালোভাবে মথে নিতে হবে।

তৃতীয় ধাপ

মোথা শেষ হয়ে গেলে একই বাটিতে চারপাশে তেল ব্রাশ করে নিতে হবে। তারপর এই ডোটাকে বল এর মত করে এই বাটিতে রেখে দিতে হবে। তারপর ডো এর পর তেল মাখিয়ে নিতে হবে। এখন এই ডোটাকে গরম জায়গায় এক থেকে দুই ঘন্টার জন্য রেখে দিতে হবে।

চতুর্থ ধাপ

এখন পিজ্জা ওপরে স্টাফিং এর জন্য হাড়ছাড়া মুরগির মাংস কে আদা ও রসুন বাটা দিয়ে হালকা একটু ভেজে নিতে হবে। ভাজাটা এমন হবে যে মাংস সিদ্ধ হয়ে যাবে। এখন এক থেকে দুই ঘন্টা পর দেখা যাবে যে পিজ্জার ডো ফুলে ডাবল হয়ে গেছে। তারপরে পিজ্জার ডোটিকে আবারো 10 মিনিটের জন্য মেখে নিতে হবে।

এখন এই ডোটিকে সমান দুইটি অংশে ভাগ করে নিতে হবে  । এখন যে পাত্রে পিজ্জা তৈরি করা হবে ওই পাত্রে সামান্য একটু ময়দা ছিটিয়ে নিতে হবে। তারপর একটি অংশ এনে এ পিজ্জা পাত্রে হাত দিয়ে আস্তে আস্তে করে ছড়িয়ে দিতে হবে।

চুলায় পিজ্জা তৈরি

তারপর ছড়ানো হয়ে গেলে হাত দিয়ে মাঝখান থেকে একটু ফোলা রেখে সাইড দিয়ে হালকা করে চেপে দিতে হবে। এখন একটি ব্রাশ দিয়ে টমেটো সস ব্রাশ করে নিতে হবে।

তারপর গ্রেটার করা চিজ ছড়িয়ে দিয়ে দিতে হবে। তারপর এক এক করে টমেটো, ক্যাপসিকাম পেঁয়াজ, কাঁচামরিচ ওপরে দিয়ে দিতে হবে। তারপর ওপরে আবারো চিজ ছড়িয়ে দিতে হবে। যেহেতু আমি এটা চুলায় করব তার জন্য পিজ্জার সাইট গুলা কালার আনার জন্য আমি টমেটো সস দিয়ে দিব।

এখন কেক যেভাবে বেকিং করা হয় ঠিক একই পদ্ধতিতে এ পিজ্জা টাকে 10 থেকে 15 মিনিট বেক করে নিব।

শেষ ধাপ

10 থেকে 15 মিনিট হয়ে গেলে একটি টুথপিক এর সাহায্যে চেক দিয়ে নিব। যখন দেখব যে টুথপিক ক্লিন আসবে তখন বুঝতে হবে যে পিজ্জা হয়ে গেছে। আর যদি টুথপিক ক্লিন না আসে তখন আরও 5 মিনিট চুলার রাখতে হবে। এখন গরম গরম পিজ্জা সস এর সাথে পরিবেশন করতে পারেন।