মজাদার নাস্তা রেসিপি

বেঁচে যাওয়া রুটি দিয়ে মজাদার নাস্তা তৈরী করুন

সকালের নাস্তা খাবারের পর অনেক সময় অনেক রুটি থেকে যায়। এই রুটিগুলো পরবর্তীতে খেতে ভালো লাগে না। কিন্তু এই রুটি দিয়ে খুব মজাদার নাস্তা তৈরী করে খেতে পারবেন। বিকালের নাস্তায় চায়ের সাথে এর কোন জুড়ি নেই। এই নাস্তা বড় ছোট সকলের খুব পছন্দ হবে। রুটির এই মজাদার নাস্তা তৈরীতে তেমন কোন ঝামেলা নেই। তাহলে চলুন জেনে নেই কিভাবে বেঁচে যাওয়া রুটি দিয়ে মজাদার নাস্তা তৈরি করা যায়।

 

বেঁচে যাওয়া রুটি দিয়ে মজাদার নাস্তা তৈরী যে সব উপাদান লাগবে:

কিমার জন্য যে সব উপকরণ লাগবে:
আলু -২টি (কিউব করে কাটা), গাজর – ১ টি ( কিউব করে কাটা) , মটরশুটি -২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজকুচি – ২ চামচ, কাঁচামরিচ কুচি – ১ চামচ, ( স্বাদমত) , তেল – ১ টেবিল চামচ, আদা ও রসুন বাটা – ১ চামচ,  পাঁচফোড়নের গুড়া – ১ চামচ , জিরা গুড়া – ১/২ চামচ,লবন : স্বাদমত, হলুদ গুড়া – ১ চামচ, তেল –  পর্যাপ্ত পরিমান ( ভাজার জন্য)।
 কোণের জন্য যে সব উপকরণ লাগবে:
বেঁচে যাওয়া রুটি -৫ টি, ময়দা – ২ টেবিল চামচ, পানি – প্রয়োজনমত। চিড়া – ১ কাপ।

বেঁচে যাওয়া রুটি দিয়ে মজাদার নাস্তা তৈরী করবেন যেভাবে:

প্রথমে একটি কড়াইতে ১ টেবিল চামচ পরিমান তেল দিয়ে গরম করে নিতে হবে। তেল যখন গরম হয়ে আসবে তখন কেটে রাখা পেয়াজ দিয়ে দিতে হবে। যখন পেয়াজ একটু লাল হয়ে আসবে তখন তার মধ্যে আদা ও রসুন বাটা, এবং কেটে রাখা আলু, গাজর, ও মটরশুটি  এবং স্বাদ মত লবন দিয়ে দিতে হবে। এখন এই সবগুলো উপকরন নেড়ে চেড়ে ঢাকনা দিয়ে দিতে হবে।

যখন আলু, গাজর  মটরশুটি সিদ্ধ হয়ে আসবে তখন এর ভিতর কাচামরিচ কুচি, হলুদের গুড়া, জিরা গুড়া ও পাচফোড়ন দিয়ে নেড়েচেড়ে শুকিয়ে নিতে হবে। যখন সবটুকু পানি শুকিয়ে যাবে তখন এটা চুলা থেকে তুলে ঠান্ডা করে নিতে হবে।
মজাদার নাস্তা
এখন একটি বাটিতে ময়দা ও পানি দিয়ে একটি ঘন ব্যাটার তৈরি করতে হবে। এটা আঠার কাজ করবে। এখন একটি ছুরি অথবা কেচি দিয়ে একটি রুটিকে ৪ ভাগ করে কেটে নিতে হবে। ৪ ভাগ করে কেটে নেওয়ার পর রুটির প্রত্যকটি পিচ দেখতে ত্রিভুজের মত হবে। একটি পিচ নিয়ে রুটির চারপাশে ময়দা ও পানি দিয়ে যে ব্যাটার তৈরি করে রেখেছি তা লাগিয়ে দিবো। এখন একপাশ ধরে পেচিয়ে অন্য পাশে নিয়ে লাগিয়ে দিতে হবে। এখন দেখা যাবে যে একটি কোণ তৈরি হয়েছে। এমন করে প্রত্যকটি রুটি কোণ তৈরি করতে হবে।
তারপর এই কোণের ভিতর তৈরি করে রাখা পুর দিয়ে দিতে হবে। এখন পুর দেওয়ার পর উপরের দিকটাকে ময়দার মিশ্রণে চুবিয়ে আবার চিড়ার উপর গড়িয়ে নিতে হবে। এভাবে সবগুলো তৈরি করে নিতে হবে। এখন একটি কড়াইতে পর্যাপ্ত পরিমান তেল দিয়ে গরম করে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে কোণ দিয়ে হালকা আঁচে বাদামি কালার করে ভেজে নিয়ে একটি টিস্যুর উপর তুলে নিলেই যাবে মজাদার নাস্তা।
এখন গরম গরম যে কোন সস এর সাথে পরিবেশন করতে পারেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সংশ্লিষ্ট আরো পোস্ট