চিকেন স্টাফ বান

চিকেন স্টাফ বান রেসিপি বা পুর ভরা বান অথবা তেলে ভাজা বান

চিকেন স্টাফ বান রেসিপি এমন একটি নাস্তা যা একবার খেলে বারবার খেতে মন চাইবে।

এমন কি বাচ্চাদের টিফিন বক্সে যদি এই খাবার দেন তখন টিফিন বক্স আর খালি আসবে না।

সকালের নাস্তা বা বিকেলের নাস্তায় তো এই নাস্তার রেসিপি তৈরি করে নিতে পারেন।

আর চিকেন এর পুরো দেয়ার কারণে এটার স্বাদ অনেকটা বেড়ে যায়। তাহলে চলুন জেনে নেই চিকেন স্টাফ বান রেসিপি –

চিকেন স্টাফ বান রেসিপি উপকরণ :

পুরের জন্য যা যা লাগবে
  • মুরগির বুকের মাংস -১ কাপ
  • পেঁয়াজ কুচি -১ চামচ
  • কাঁচামরিচ কুচি – স্বাদমতো
  • গোলমরিচের গুঁড়া -১ চামচ
  • লবণ – স্বাদমতো
  • বাটার -১টেবিল চামচ
  • ময়দা -১ টেবিল চামচ
  • দুধ- ২কাপ
  • তেল পরিমানমতো -( ভাজার জন্য)
  • আদা বাটা ১ টেবিল চামচ
  • রসুন বাটা -১চামচ
  • ধনিয়া পাতা কুচি -১ টেবিল চামচ
  • সয়া সস-১ চামচ
ডো তৈরীর জন্য যা যা লাগবে –
  •  ময়দা -২ কাপ
  • ইস্ট -১টেবিল চামচ
  • কুসুম গরম দুধ- ১/২ কাপ
  • লবণ – স্বাদমতো
  • তেল- ৩ টেবিল চামচ

 চিকেন স্টাফ বান রেসিপি প্রণালী :

প্রথমে ইস্ট কে একটিভ করতে হবে।
তার জন্য একটি বাটিতে ইস্ট ও কুসুম গরম দুধ মিশিয়ে নিতে হবে।
এখন এই মিশ্রণটি কে একটি ডাকনা দিয়ে 10 মিনিটের জন্য ঢেকে রাখতে হবে।
10 মিনিট পর দেখা যাবে যে এই মিশ্রণে বুদবুদ সৃষ্টি হচ্ছে।
এটাই হচ্ছে ইস্ট একটিভ করা।

এখন একটি বড় বাটিতে ময়দা, স্বাদমতো লবণ ও তেল ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে।

মিশানো হয়ে গেলে আগে থেকে তৈরি করে রাখা ইস্ট এর মিশ্রণ এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে।
তারপর হাত দিয়ে ভালোভাবে সবগুলো উপকরণ মিশিয়ে নিতে হবে।
এ পর্যায়ে মিশাতে গেলে ডো হাতে লেগে আসতে পারে।
এই ডোটিকে 10 থেকে 15 মিনিটের মতো মেখে নিতে হবে। এখন আর হাতে লেগে আসবে না।
যখন মেশানো শেষ হয়ে যাবে এই ডোকে একটি বোডে নিয়ে নিতে হবে।
চিকেন স্টাফ বান রেসিপি
এখন এই বোর্ডের ওপর সামান্য একটু ময়দা ছিটিয়ে ডোটাকে ভালোভাবে আরও পাঁচ মিনিটের জন্য মথে নিতে হবে।
এখন এই ডোটি কে একটি বলের মত সেভ দিয়ে দিতে হবে।
তারপরে ডো এর উপরে এবং চারপাশে তেল মাখিয়ে নিতে হবে।
এখন একটি ডাকনা দিয়ে গরম জায়গায় এক ঘন্টার জন্য রেখে দিতে হবে।
তারপর ডোকে রেখে দিয়ে এখন পুর তৈরি করে নিব।

পুর তৈরীর জন্য প্রথমে মুরগির মাংস কে সিদ্ধ করে নিতে হবে।

সিদ্ধ করার জন্য একটি পাত্রে মুরগির মাংস নিয়ে নিতে হবে।
তারপরে মাংসের মধ্যে আদা বাটা, রসুন বাটা ও স্বাদমতো লবণ দিয়ে দিতে হবে।
যখন মাংস সিদ্ধ হয়ে আসবে তখন এটিকে নামিয়ে নিতে হবে।
তারপর ঠান্ডা হয়ে গেলে হাত দিয়ে মাংস কে একটু ছিড়ে নিতে হবে।

এখন একটি  ননস্টিক কড়াই চুলায় বসিয়ে দিব ।

তারপর বাটার দিয়ে দিব।
বাটার গোলে আসলে ময়দা দিয়ে দিব।
এখনো অনবরত নাড়তে থাকবো।
কিছুক্ষণ নাড়ার পর পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দিতে হবে।
পেঁয়াজ যখন হালকা নরম হয়ে আসবে,  তারপর আগে থেকে সিদ্ধ করে ছিঁড়ে রাখা মাংস দিয়ে দিতে হবে।
এখন গরুর দুধ দিয়ে সব উপকরণ একসাথে মিশিয়ে নিতে হবে।
তারপর একে একে কাঁচা মরিচ কুচি, গোলমরিচ গুঁড়া ও স্বাদমতো লবণ দিয়ে দিতে হবে।
তারপর কিছুক্ষণ পরএক চামচ সয়া সস দিয়ে দিতে হবে।
এখন নাড়তে নাড়তে একপর্যায়ে দেখা যাবে যে, হালকা একটু থকথকে হয়ে আসছে।
এখন ধনিয়া পাতা দিয়ে নামিয়ে নিতে হবে। তারপর এটাকে ঠান্ডা করে নিতে হবে।
1 ঘন্টা পরে দেখবেন ডো ফুলে তিনগুণ হয়ে গেছে।
তারপর  হাত দিয়ে ডো থেকে বাতাস বের করে নিতে হবে।

তারপর ডোকে সমান ভাগে ভাগ করে নিতে হবে।

এখন ডু এর একটি অংশ নিয়ে আবারো ভালো করে মথে নিতে হবে।
এখনই ডোটিকে হাত দিয়ে হালকা একটু গুল করে নিতে হবে।
তারপর মাঝ বরাবর তৈরি করে রাখা পুর দিয়ে দিতে হবে।
এখন হাত দিয়ে চারপাশ থেকে রুটি এনে গুল করে নিতে হবে।
তারপর পেছনের দিকে যেখানে এ এলোমেলো অংশ থাকবে এটাকে ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে।
এখন একটি ছড়ানো জায়গায় হালকা একটু ময়দা ছিটিয়ে দিতে হবে।
তারপর তৈরি করে রাখা স্টাফ বান এর উপর রেখে দিতে হবে।
এমন করে সবগুলো স্টাফ বান তৈরি করে নিতে হবে।

এখন এই স্টাফ বানানগুলো কে একটি কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখতে হবে 20 মিনিটের জন্য।

20 মিনিট পর দেখবেন আর একটু ফুলে উঠছে।
এখন এগুলোকে ভেজে নেওয়ার পালা।
ভাজার জন্য একটি কড়াইতে পর্যাপ্ত পরিমাণ তেল দিয়ে দিতে হবে।
তেল যখন হালকা গরম হয়ে আসবে তখন তৈরি করে রাখা স্টাফ বান দিয়ে দিতে হবে।
এক্ষেত্রে মাথায় রাখতে হবে যেন কড়াইতে পর্যাপ্ত পরিমাণ জায়গা থাকে।
এমন হিসেব করে স্টাফ বান দিতে হবে।
প্রয়োজনে করাইতে একটি একটি করে স্টাফ বান ভেজে নিতে হবে।
না হয় স্টাফ বানানগুলো পর্যাপ্ত পরিমাণে ফুলবে না এবং ভেতর দিয়ে কাঁচা থাকবে।
এক্ষেত্রে তেলও বেশি গরম করা যাবে না।
এমন করে  প্রতিটি স্টাফ ভেজে নিতে হবে।
তো হলে গেল চিকেন স্টাফ বান রেসিপি।
ভাজা শেষ হয়ে গেলে যে কোন ধরনের সসের সাথে পরিবেশন করতে পারেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সংশ্লিষ্ট আরো পোস্ট