মুরালি

ঘরেই মচমচে মুরালি তৈরী করে নিন

পহেলা বৈশাখের একটি ঐত্যিবাহি খাবার হলো মুরালি বা খুরমা।  পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে বিভিন্ন জায়গায় মেলা হয়। এইসব মেলাতে মুরালি বা খুরমা হচ্ছে প্রধান আকর্ষন। কিন্তুু কথা হলো বাহিরের মুরালি কতটা স্বাস্থ্যসম্মত। এই সব কথা চিন্তা করে সবাই খেতে চাই না। তাই আমি আজকে আপনাদেরকে খুব সহজে এবং অল্প সময়ে কিভাবে মুরালি বা খুরমা তৈরী করা যায় দেখাবো। চলুন জেনে নেই কিভাবে কুড়মুড়ে মুরালি কিংবা খুরমা তৈরী করা যায়।

মচমচে মুরালি তৈরী উপকরণ

ডো এর জন্য যা যা লাগবে
ময়দা -২ কাপ, ১১/২ টেবিল চামচ, লবন – স্বাদমত, পানি – প্রয়োজনমত, তেল – ভাজার জন্য।
সিরার জন্য যা যা লাগবে
চিনি ১ কাপ, পানি – ১/২ কাপ।

মচমচে মুরালি তৈরী প্রনালি

একটি বাটিতে ময়দা, স্বাদমত লবন ও তেল নিয়ে হাত দিয়ে মিশিয়ে নিতে হবে। এখন অল্প অল্প পানি দিয়ে একটি ডো তৈরী করতে হবে। এখন এই ডোটাকে আধা ঘন্টার জন্য ঢেকে রেখে দিতে হবে। আধাঘন্টা পর ডো থেকে ছোট ছোট লেচে কেটে নিতে হবে। এখন একটি লেচি নিয়ে এক ইন্ঞি পরিমান করে একটি রুটি বেলে নিতে হবে। তারপর এই রুটিকে একটি ছুঁরি দিয়ে লম্বা করে মুরালি শেপ দিয়ে কেটে নিতে হবে।
মুরালি রেসিপি
এমন করে সবগুলো ডোটাকে কেটে নিতে হবে। এখন একটি কড়াইতে পর্যাপ্ত পরিমানে তেল গরম করে নিতে হবে।  তেল গরম হয়ে গেলে কেটে রাখা মুরালি দিয়ে গোল্ডেন কালার করে ভেজে নিতে। এমন করে সবগুলো মুরালি ভেজে নিতে হবে। ভাজা শেষ হয়ে গেলে এইগুলো একটি কিচেন টিস্যুর উপর রেখে দিতে।
এখন সিরার জন্য একটি ছড়ানো পাত্র নিতে হবে। এই পাত্রে চিনি ও পানি নিয়ে চুলায় জ্বাল করতে হবে। জ্বাল করার পর যখন চিনি গলে একতারের মত সিরা তৈরী করতে হবে। এখন এই সিরার মধ্যে ভেজে রাখা মুরালি দিয়ে দিতে হবে।
এখন একটি কাটি দিয়ে নাড়তে হবে। নাড়কে দেখা যাবে যে সিরা শুকিয়ে মুরালির গায়ে লেগেছে। তারপর চুলায় বন্ধ করে দিতে হবে। এখন এই মুরালি  ঠান্ডা  করে নিলে হয়ে যাবে কুড়মুড়ে মুরালি বা খুরমা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সংশ্লিষ্ট আরো পোস্ট