আলুর নাস্তা

আলু পুরের মজাদার নাস্তা রেসিপি

বিকেলের নাস্তায় বা মেহমান আপ্যায়নে এই আলু পুরের নাস্তা কোন জুড়ি নেই। আপনার হাতের কাছে থাকা স্বল্প উপকরন দিয়ে খুব কম সময়ে বা মেহমানের সাথে কথা বলতে বলতে এই মজাদার নাস্তা তৈরী করতে পারবেন। এটা একটি ভিন্ন ধরনের নাস্তা। তাহলর চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে আলু পুরের মজাদার নাস্তা তৈরী করা যায়।

আলু পুরের মজাদার নাস্তা তৈরী করতে যে উপকরণ লাগবে:

পরের জন্য উপকরণ: আলু -২ টি ( সিদ্ধ করে চটকে নেওয়া) , মঁটরশুটি -১/২ কাপ (সিদ্ধ করে নেওয়া) , পেয়াজকুচি -২ টেবিল চামচ, কাঁচামরিচ কুচি -১ টেবিল চামচ, লবন – স্বাদমত, ধনিয়াপাতা কুচি -২ টেবিল চামচ, চ্যাটমসলা – ১ চামচ,তেল -৩ টেবিল চামচ ( ভাজার জন্য)
উপরের কভাররের জন্য উপকরণ: ময়দা -১ কাপ, লবন – স্বাদমত, পানি – পরিমানমত। ময়দা -৩ টেবিল চামচ ( পেস্ট তৈীর জন্য) , পানি – পরিমানমত ( পেস্টের জন্য)।

আলু পুরের মজাদার নাস্তা কিভাবে তৈরী করবেন:

প্রথমে একটি বাটিতে ১ কাপ ময়দা ও স্বাদমত লবন দিয়ে হাত দিয়ে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর অল্প অল্প পানি দিয়ে একটি  ডো তৈরী করতে হবে। এখন এই ডোটাকে ১০ মিনিটের জন্য ঢেকে রেখে দিতে হবে। এখন অন্য একটি বাটিতে চটকে রাখা আলু, মঁটরশুটি, পেয়াজ, কাচামরিচ, ধনিয়াপাতা কুচি এবং স্বাদমত লবন ও চ্যাট মসলা দিয়ে দিতে হবে। এখন এই সবগুলো উপকরন হাত দিয়ে মিশিয়ে একটি ভর্তার মত তৈরী করে  নিতে হবে। তারপর অন্য একটি বাটিতে ৩ টেবিল চামচ ময়দা ও পানি দিয়ে একটি পেস্ট তৈরী করে নিতে হবে।
তারপর ১০ মিনিট আগে যে ডো করে রেখেছি তার থেকে  অল্প অল্প ডো নিয়ে রুটির মত বেলতে হবে। এই রুটির উপরের অংশে তৈরী করে রাখা ভর্তা দিয়ে পুরো রুটিটাকে রোল করে নিতে হবে। এখন একটি ছুঁরি দিয়ে ছোট ছোট পিচ করে কেটে নিতে হবে। তারপর একেকটি পিচ হাত দিয়ে চাপ দিয়ে একটু চ্যাপ্টা করে নিতে হবে।
এখন একটি কড়াইতে সামন্য তেল দিয়ে গরম করে নিতে হবে। তারপর একটি পিচ নিয়ে ময়দা ও পানির মিশ্রনের যে পেস্ট রয়েছে তা ভিতর চুবিয়ে গরম তেলের মধ্যে দিয়ে হালকা ব্রাউন কালার আসা পর্যন্ত ভেজে নিলেই হতে যাবে আলু পুরের মজাদার নাস্তা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সংশ্লিষ্ট আরো পোস্ট